Breaking News

ভয়ঙ্কর একটি চিতাবাঘের হাত থেকে বাঁদর ছানাকে বাঁচাল হাতি, ভিডিও দেখে মুগ্ধ নেটিজেনরা

ইন্টারনেটের যুগে এখন অনেক ছবি, ভিডিও ভাইরাল হচ্ছে। যা দেখলে আমার, আপনার সকলের হুঁশ উড়তে বাধ্য। সম্প্রতি এমনই একটি ভিডিও দারুণ ভাইরাল হল সোশ্যাল মিডিয়ায়, যা দেখলে আপনার মন মায়ায় ভরে যেতে বাধ্য। সঙ্গে ভিডিওটি প্রমাণ করছে যে, যেকোনো প্রাণীর মধ্যেই মায়ের মত হৃদয় বর্তমান। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, একটি হাতি গভীর বনের মধ্যে থেকে একটি হনুমানকে চিতাবাঘের মুখ থেকে বাঁচিয়ে আনল। নিশ্চয়ই অবাক হচ্ছেন, এও সম্ভব! হ্যাঁ, সব সম্ভব।

এই কয়েক সেকেন্ডের ভিডিওটি এখন নেটপাড়ায় রীতিমতো রাজত্ব করছে। এরকম তাজ্জব ঘটনার সাক্ষী রইল গোটা সোশ্যাল মিডিয়া, আর এই দৃশ্যগুলি খালি চোখে কখনই দেখা সম্ভব নয়। কারণ এগুলো নিজের চোখে খুব একটা দেখা যায়না। খুব নিখুঁত হয় দৃশ্য হয় এগুলি, কারণ পশু পাখিরা চটজলদি লোকালয়ে নিজেদের ধরা দেয় না।

তাই এগুলো খুব নিখুঁত এবং চক্ষু সার্থক করার মত দৃশ্য হয়। এই ভিডিওটির শুরুতেই দেখা গিয়েছে, একটি বনের মধ্যে অনেকগুলি হনুমান একসঙ্গে খেলা করছিল। তখনই চুপিসাড়ে একটি চিতাবাঘ গাছটির নিচে বসে ছিল শিকারের খোঁজে। এরপর এক গাছ থেকে অন্য গাছে ঝাঁপ দিতেই ছোট এক হনুমানকে ধরে ফেলে চিতাবাঘটি। একেবারে সোজাসুজি মুখে পুরে দিতে গেলেই দূর থেকে এই দৃশ্য দেখে একটি পূর্ণ বয়স্ক হাতি দৌড়ে সে চিতাবাঘের কাছে আসে।

তখন চিতাবাঘটি হাতিকে দেখেই ভয়ে হনুমান ছানাকে মুখ থেকে ফেলেই দৌড় দেয়। আসলে মায়ের মন মানুষের পাশাপাশি সব প্রাণীদের মধ্যেই বর্তমান। তাদের কোনো বোধ-শক্তি না হলেও মায়ের মতো মন বর্তমান। তাই হনুমান ছানাটির বিপদ দেখে হাতিটি ছুটে চলে এলো। তারপরে সেই হনুমানের মা তার সন্তানকে কাছে টেনে আদর করতে শুরু করেন। ‘Wild Animals Things’ নামক একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে এই ভিডিওটি আপলোড করা হয়েছিল। যা ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ার দ্বারা ভাইরাল হয়েছে।

About admin

Check Also

দিনে ৩০টাকা উপার্জন করে সংসার চালাতেন মা! আজ কোটি টাকার মালিক ছেলে

বিজ্ঞানী ভিনটন জি কার্ফকে ইন্টারনেটের জনক বা আবিষ্কারক বলা হয়। ইন্টারনেট আবিষ্কারের পর এটির সবথেকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *