Breaking News

ছিল না স্কুলের ফিস দেওয়ার টাকা, ৫ টাকার বিনিময়ে করতেন শ্রমিকের কাজ, আজ গ্রেট খালির সম্পত্তি দেখলে হবেন অবাক

কষ্ট করলে সফলতা পাওয়া যায়। তাই সফলতা পাওয়ার জন্য পরিশ্রম এবং চেষ্টা অবশ্যই করা দরকার, তবে লক্ষ্যের দিকে পৌঁছানো সম্ভব হয়। যদি কষ্ট দেখলে কোন ব্যক্তি পালিয়ে যান, তাহলে তিনি কখনোই সফলতার চূড়ায় পৌঁছাতে পারবেন না এবং তিনি তার জীবনে অসফলতার সম্মুখীন বারবার হবেন। আজ এমন এক ব্যক্তির কথা আপনাদের বলব, যিনি অসম্ভব পরিশ্রম করে আজ সফল।

সেই ব্যক্তি হলেন আর কেউ নন স্বয়ং দ্য গ্রেট খালি ওরফে দিলীপ সিং রানা। তাঁর নাম শুধু দেশে নয় বিদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি WWE থেকে সারা বিশ্বে ভারতের নাম তুলে ধরেছেন। তাঁকে WWE থেকেই নাম দেওয়া হয়েছে দ্য গ্রেট খালি। অনেকেই হয়তো জানেন না, তাঁর জন্ম হলো ভারতবর্ষেই। তাঁর আসল নাম হল দিলীপ সিং রানা। তাঁকে নিয়ে একটি বইয়ে লেখা হয়েছে। বইটির নাম হলো ‘The man who become khali’. তিনি বিভিন্ন রিয়েলিটি শোতে উপস্থিত থাকেন।

বইটিতে লেখা রয়েছে, তাঁর জীবনের বিভিন্ন নানা ওঠাপড়ার গল্প। একটা সময়ে তাঁর কাছে স্কুলের ফিস জমা দেয়ার মত টাকা ছিলনা। তাকে স্কুলের শিক্ষক ফিস জমা না দেওয়ার জন্য তাঁকে চরম অপমান করেছিল। কারণ তাঁর পরিবারের সদস্যের কাছে তাঁকে স্কুলের ফিস দেওয়ার মতো অর্থ ছিল না। তিনি স্কুল ছেড়ে দেন এবং তিনি আর ওই স্কুলের দিকে ফিরে তাকাননি। এরপর তিনি ৫ টাকার বিনিময়ে শ্রমিক হিসেবে কাজ করতে শুরু করেন। এরসাথে নিজের বডি ফিটনেসের উপর লক্ষ্য দিতে শুরু করেন।

তিনি ১৯৯৭ সালে মিস ইন্ডিয়ার খেতাব জিতেছিলেন। শুধু একবার নয় তিনি এই খেতাব পরের বছর অর্থাৎ ১৯৯৮ সালে আরেকবার জিতে নিয়েছিলেন। তাঁর প্রতিভা দেখে অতীতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এপিজি আব্দুল কালাম, রাষ্ট্রপতি ভবনে ডেকেছিলেন। তিনি খালির সাথে কথা বলে, খুবই মুগ্ধ হয়েছিলেন। একদিকে খালির কাছে স্কুলের ফিস জমা দেওয়ার টাকা ছিল না, এখন তাঁর কাছে ৯৬ কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে।

About admin

Check Also

গলায় কালচে দাগ পড়লে এটা কীসের লক্ষণ?

গলায় কালচে দাগ অনেকই স্বাভাবিকভাবে নেন। ভাবেন শরীরের ময়লা। তবে গলায় এসব কালচে দাগ দেখলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *