Breaking News

কারাগারে অন্ধকারে প্রদীপ, ভেগে গেলেন স্ত্রী’ চুমকি!

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ বর্তমানে কাশিমপুর কারাগারে অন্ধকারাচ্ছন্ন জীবন পার করছেন। অন্যদিকে দুর্নীতির মূল সহযোগী তার স্ত্রী চুমকি স্বামীকে ছেড়ে পালিয়েছেন।

সে’নাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্ম’দ রাশেদ খান হ’ত্যা মা’মলায় মৃ’ত্যুদ’ণ্ডপ্রাপ্ত বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমা’র দাশ বর্তমানে কাশিমপুর কারাগারে অন্ধকারাচ্ছন্ন জীবন পার করছেন। অন্যদিকে দু’র্নীতির মূল সহযোগী তার স্ত্রী’ চুমকি স্বামীকে ছেড়ে পালিয়েছেন। প্রদীপের মৃ’ত্যুদ’ণ্ডের রায়ের পর থেকে কোনো হদিস মেলেনি চুমকির। প্রায় চার কোটি টাকার অ’বৈধ সম্পদ অর্জনের অ’ভিযোগে দুদকের দায়ের করা মা’মলার প্রধান আ’সামি চুমকি। এ মা’মলায় দ্বিতীয় আ’সামি প্রদীপ। ঘটনার পরপরই আত্মগো’পনে চলে যান চুমকি।

স্ত্রী’-সন্তানের জন্য অ’পকর্ম করে গড়েছিলেন সম্পদের পাহাড়। ক্ষমতার জো’রে সৎবোন রত্না বালা প্রজা’পতির বাড়ি পর্যন্ত দখল করে নিয়েছিলেন। প্রদীপ ও তার স্ত্রী’ চুমকি কারনের নামে একাধিক বাড়ি, ফ্ল্যাট, ব্যবসা’সহ সম্পদের পাহাড় গড়ার তথ্য পায় দু’র্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। কথিত আছে, অস্ট্রেলিয়া, ভা’রতের আগরতলা, বারাসাত, গৌহাটিতে এই দম্পত্তির নামে একাধিক বাড়ি রয়েছে।

বিদেশে পাচার করেছেন অঢেল টাকা। চট্টগ্রামেও রয়েছে একাধিক ফ্ল্যাট ও ব্যবসা। রয়েছে ভা’রতীয় পাসপোর্ট। প্রদীপ ও তার স্ত্রী’-সন্তান সেখানকার নাগরিকত্ব নিয়েছেন বলে বিভিন্ন সূত্র দাবি করেছে। তবে দেশে থাকা তাদের সব সম্পত্তি আ’দালতের নির্দেশে এখন জ’ব্দ রয়েছে।

তবে সিনহা হ’ত্যা মা’মলায় প্রদীপ গ্রে’প্তার হওয়ার পর আর তার পাশে নেই কেউ। এ সময়ে পাননি স্ত্রী’-সন্তানের দেখা। গ্রে’প্তারের পর থেকেই আত্মগো’পনে রয়েছেন স্ত্রী’ চুমকি কারন। প্রদীপপত্নী দেশেই কোথাও লুকিয়ে আছেন না পালিয়ে বিদেশে গেছেন তা বলতে নারাজ স্বজনরা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও চুমকির অবস্থানের সঠিক কোনো তথ্য দিতে পারছে না।

বিভিন্ন সূত্রের মতে, প্রদীপ কুমা’র গ্রে’প্তারের পর চুমকি কারন প্রথমে চট্টগ্রাম শহরের সদরঘাটে এক স্বজনের বাসায় কিছুদিন আত্মগো’পনে ছিলেন। এরপর থেকে তার আর হদিস মিলছে না। অনেকে ধারণা করছেন তিনি সীমান্ত পাড়ি দিয়ে অ’বৈধপথে ভা’রতে পালিয়েছেন।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ২৩ আগস্ট প্রদীপ দম্পতির বি’রুদ্ধে অ’বৈধ সম্পদ অর্জনের মা’মলা দায়ের করেন দুদকের সহকারী পরিচালক মো. রিয়াজ উদ্দিন। এই মা’মলায় এখন প্রদীপ দম্পতি বিচারের মুখোমুখি হয়েছেন। মা’মলায় তাদের বি’রুদ্ধে তিন কোটি ৯৫ লাখ পাঁচ হাজার ৬৩৫ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন, সম্পদের তথ্য গো’পন ও মানি লন্ডারিংয়ের অ’ভিযোগ আনা হয়েছে।

About admin

Check Also

এবার এক রাতেই কোটিপতি মাছ বিক্রেতা

মাছ বিক্রি করে এক রাতেই কোটিপতি হয়ে গেছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের এক মৎস্য ব্যবসায়ী। সামুদ্রিক মাছ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *