Breaking News

এই কায়দায় রান্না করুন তাজা রুই মাছ দিয়ে ঝিঙের ঝোল, স্বাদ হবে দূর্দান্ত, রইল ভিডিও সহ স্টেপ বাই স্টেপ রেসিপি!

নিজস্ব প্রতিবেদন: এই নিয়মে পুকুরের তাজা রুই মাছ দিয়ে ঝিঙের ঝোল রান্না করলে স্বাদ হবে দূর্দান্ত, রইল ভিডিও সহ স্টেপ বাই স্টেপ রেসিপি! নিজেদের পুকুর এর তাজা মাছের তরকারি কে না পছন্দ করে।আর যদি সেটা হয় নিজের চাষ করা সবজি আর মাছের তরকারি পাতলা ঝোল তাহলে তো কথাই নাই। গ্রামের মা বোন পুকুর থেকে তাজা মাছ ধরে পাতলা ঝোল রান্না করে।গ্রাম বাংলার প্রধান খাবার হচ্ছে ভাত-মাছ তবে এটা বাঙালির প্রধান খাবার বটে।

নিজের হাতে ছিপ ফেলে অপেক্ষার পর যখন একটি বড় মাছ পাওয়া যায় তখন আনন্দে আত্মহারা হয়ে যায় ।আর সেই মাছ নিজের মতো করে সুন্দরভাবে রান্নার মধ্যে আনন্দ খুঁজে পাওয়া যায়। ইউটিউবে দেখা যায় গ্রামের এক বউ নিজে সিট পেতে মাস ধরে রান্না করে খেয়েছেন। আর সেই রান্নার ভিডিও দ্রুত নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায় কারণ রেসিপিটা ছিল অসাধারণ। অনেকে তার রেসিপি দেখে রান্না করে তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কারণ রেসিপিটা ছিল অমৃত।

তাই আমরা তার দেয়া রেসিপি আপনাদের কাছে তুলে ধরলাম। আপনারা যদি এই রেসিপি হুবহু দেখে রান্না করেন এবং রান্নার ধাপগুলো মনে রেখে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে রান্না করেন তবে আপনার রান্না হবে অসাধারণ। রুই মাছ ও সিঙ্গার পাতলা ঝোল রান্না করতে যা যা উপকরণ লাগবে তা হচ্ছে।

তাজা রুই মাছ, ঝিঙে, আলু, হলুদ গুড়া, কাঁচামরিচ, লবণ, সরিষার তেল,আদা বাটা,সরিষা বাটা ,পাচপুরন, পেঁয়াজ,তেজপাতা ও জিরা বাটা ইত্যাদি। এখন মাস্তি সুন্দর করে কেটে ধুয়ে নিতে হবে। এরপর মাছে হলুদ আর লবণ দিয়ে 5 থেকে 10 মিনিট মাখিয়ে রাখতে হবে। একটি পরিষ্কার পাত্রে তেল গরম করে নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে সেই তেলে রুই মাছ সুন্দরভাবে ভেজে নিতে হবে। সেই একই করাতে ঝিঙে আর আলু একসাথে হালকাভাবে ভেজে নিয়ে তুলে রাখতে হবে।

এরপর কড়াইতে তেল গরম করে আদা বাটা, জিরা বাটা, কাঁচা লঙ্কা, টমেটো, হলুদ গুঁড়া, লবণ মিশিয়ে কিছুক্ষণ নাড়াতে হবে। এরপর আলু দিয়ে কিছুক্ষণ কষিয়ে আলু সেদ্ধ করার জন্য পানি ঢেলে দিতে হবে। আলু সেদ্ধ হয়ে গেলে একটি পাত্রে আলুর ঝোল সহ গেলে রাখতে হবে।

এ পর্যায়ে আবার কড়াইতে তেল গরম দিয়ে সেই তেলে পাঁচফোড়ন,পেঁয়াজ, তেজপাতা দিয়ে বাগার তৈরি করে নিতে হবে। উপকরণ গুলো ভাজা হয়ে গেলে সেই কড়াইতে রেখে দেওয়া আলুর ঝোল ঢেলে দিতে হবে। কিছুক্ষণ ফুটিয়ে নেওয়ার পর, মাছ এবং ঝিঙে গুলো উপর দিয়ে দিয়ে দিতে হবে।

কয়েকবার গুটিয়ে নেওয়ার পর সেই জ্বলে উপরে সরিষা বাটা দিয়ে কিছুক্ষণ চুলায় রেখে নামিয়ে ফেলতে হবে। এখানে মনে রাখতে হবে সরিষা বাটা দেওয়ার পর বেশিক্ষণ চুলায় রাখা যাবে না তাহলে তরকারি তিতকুটে লেগে যাবে। রুই মাছের সাথে ঝিঙের পোল পরিবেশন করে সাথে লেবু দিয়ে ভাত খেলে অসাধারণ লাগে। কি হলো কি এই মুখরোচক রুই মাছের ঝোলের তরকারি ভিডিওটি দেখতে ইচ্ছে করছে।তাহলে নিচের দেওয়া লিংকে গেলেই দেখতে পাবেন অসাধারণ এক রেসিপির ভিডিও।

About admin

Check Also

গলায় কালচে দাগ পড়লে এটা কীসের লক্ষণ?

গলায় কালচে দাগ অনেকই স্বাভাবিকভাবে নেন। ভাবেন শরীরের ময়লা। তবে গলায় এসব কালচে দাগ দেখলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *